অনুব্রতর সঙ্গে বৈঠক হয়েছিল কার নির্দেশে? শক্তিগড় রহস্যের পর্দা ফাঁস করলো ইডি

গরু পাচার মামলায় অভিযুক্ত অনুব্রত মণ্ডলকে গত ৭ মার্চ আসানসোল থেকে দিল্লি নিয়ে যায় ইডি। তাদের আগে কেন্দ্রীয় সরকারি হাসপাতালে কেষ্টর স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর কলকাতা আসার পথে শক্তিগড়ে জল খাবার খাওয়ার জন্য থেমেছিল অনুব্রতর গাড়ির চাকা। তখনই অনুব্রতর টেবিলে ২ ব্যক্তির আচমকা উপস্থিতিতে উঠেছিল ঝড়।

author-image
Pallabi Sanyal
আপডেট করা হয়েছে
New Update
anubrata shaktiga

শক্তিগড়ে ল্যাংচার দোকানে অনুব্রত মণ্ডল

নিজস্ব সংবাদদাতা : শক্তিগড়ে  ল্যাংচার দোকানে নিরাপত্তা বলয় ভেদ করে কীভাবে অনুব্রত মণ্ডলের পাশে গিয়ে বসে পড়ে ২ ব্যক্তি তা নিয়ে তোলপাড় হয়েছিল রাজ্য রাজনীতি। প্রশ্ন উঠেছিল পুলিশি নিরাপত্তা নিয়ে। এবার সেই ঘটনার নতুন আপডেট পাওয়া গেল। অনুব্রত মণ্ডলের কাছে নাকি ওই দুই ব্যক্তি, তুফান মৃধা ও কৃপাময় ঘোষকে পাঠিয়েছিলেন স্বয়ং সুকন্যা মণ্ডল। আদালতে ইডি চার্জশিটে দাবি করে গ্রেফতারির পর সুকন্যা মণ্ডল জেরায় তুফান মৃধা ও কৃপাময় ঘোষকে বাবার কাছে পাঠানোর কথা স্বীকার করে নিয়েছেন। অভিযুক্তরাও সে কথা স্বীকার করেছেন জেরায়। সুকন্যা জেরায় জানান যে আসানসোল জেলের এক আধিকারিকের কাছ থেকে তিনি জানতে পেরেছিলেন শক্তিগড়ে জলখাবারের জন্য থামবে অনুব্রতর গাড়ির চাকা। সেই মতো ২ জনকে বাবার কাছে পাঠিয়েছিলেন তিনি। এমনকি সেদিন জল খাবার খাওয়ার পর নিজের বিলও নিজেই মিটিয়েছিলেন কেষ্ট। যেহেতু তুফান ও কৃপাময় অনুব্রতর চেনা, তাদের দেখে আপত্তি না করায় কেষ্টর কাছে যেতে কেউ তাদের পথ আটকায়নি ঠিকই তবে, স্বল্প সময়ে ঠিক কী কথা হয়েছিল তাদের মধ্যে সেটা স্পষ্ট নয়।                                      



প্রসঙ্গত, গরু পাচার মামলায় অভিযুক্ত অনুব্রত মণ্ডলকে গত ৭ মার্চ আসানসোল থেকে দিল্লি নিয়ে যায় ইডি। তাদের আগে কেন্দ্রীয় সরকারি হাসপাতালে কেষ্টর স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর কলকাতা আসার পথে শক্তিগড়ে জল খাবার খাওয়ার জন্য থেমেছিল অনুব্রতর গাড়ির চাকা। তখনই অনুব্রতর টেবিলে ২ ব্যক্তির আচমকা উপস্থিতিতে উঠেছিল ঝড়। নেপথ্যে ছিলেন তারই মেয়ে সুকন্যা। জানা গেল অবশেষে।