মাসে ১০০০টাকা দেবে রাজ্য! শর্তাবলী মিলে গেলে আর দেরি কিসে?

প্রতি রাজ্যের নিজস্ব কিছু লোকসঙ্গীত ও লোকশিল্প থাকে। এই রাজ্যে এই শিল্পীদের বিশেষ সম্মান দিচ্ছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার। তাড়াতাড়ি পড়ে ফেলুন।

New Update
aaaaaa

নিজস্ব সংবাদদাতা: ক্ষমতায় আসার পর থেকে রাজ্যের মানুষদের উন্নয়নের স্বার্থে একাধিক প্রকল্পের ঘোষণা এবং তাদের রূপায়ণ ঘটিয়েছে মমতা সরকার। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরে রাজ্যে চালু হয়েছে একাধিক প্রকল্প। বছরের পর বছর ধরে এই প্রকল্পের সুবিধা নিচ্ছেন রাজ্যের সমস্ত স্তরের মানুষ। বর্তমানে রাজ্যে ৫০ টির বেশি প্রকল্প রয়েছে। এর মধ্যে লক্ষ্মীর ভান্ডার সর্বাধিক জনপ্রিয়তা পাচ্ছে এখন। বর্তমানে এই প্রকল্পের মাধ্যমে রাজ্যের প্রায় সিংহভাগ মহিলাদের মাসিক ভাতা দিচ্ছে রাজ্য সরকার। সাধারণ মহিলারা মাসিক ৫০০ টাকা এবং তফসিলি জাতি ও উপজাতির মহিলারা মাসিক ১০০০ টাকা ভাতা পেয়ে থাকেন। এছাড়াও রাজ্যের আর সব প্রকল্পের মধ্যে কন্যাশ্রী, রূপশ্রী, যুবশ্রী, সবুজসাথী, খাদ্যসাথী, কৃষকবন্ধু ইত্যাদি চালু রয়েছে রাজ্যে।

রাজ্যের লোকশিল্পীদের আর্থিকভাবে উন্নীত করতে ২০১৭ সালে একটি জনমুখী প্রকল্প চালু করা হয়। এই প্রকল্পের মাধ্যমে ৬০ বছরের বেশি বয়স্ক লোকশিল্পীদের মাসিক ভাতা দেওয়া হয়। প্রতিমাসে ১০০০ টাকা পায় তারা। পাশাপাশি রাজ্য সরকারের তরফে তাদের একটি পরিচয়পত্র দেওয়া হয়। এছাড়াও তাদের রাজ্য সরকারের নানা অনুষ্ঠানে শিল্পকলা পরিবেশনের সুযোগ দেওয়া হয়। এই প্রকল্প মাঝে একবার বন্ধ হয়ে গেলেও আবার তা চালু করা হয় চলতি বছরেই।

এই প্রকল্পের সুবিধা পেতে যে কোনো লোক শিল্পের সঙ্গে যুক্ত থাকতে হবে। শিল্পীকে বাউল গান, ছৌ নাচ, পটের গান, রণ নৃত্য, ঝুমুর গান সহ স্থানীয় লোকশিল্পের সঙ্গে যুক্ত থাকতে হবে। এছাড়াও তাকে রাজ্যের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে। আর এইসব শর্ত পূরণ হলে তথ্য ও সংস্কৃতি দফতর কিংবা পঞ্চায়েত সমিতির অফিস কিংবা সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিকের দফতরে যোগাযোগ করতে হবে। আবেদন করতে হলে ভোটার কার্ড, আধার কার্ড, পাসপোর্ট সাইজ ছবি ও ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট ডিটেলস জমা দিতে হবে।